সোশ্যাল মিডিয়া আইপিনিউজ-

আদিবাসী শিশু নিপীড়ন: ক্ষমা চাইলেন পোপ ফ্রান্সিস

কানাডায় ক্যাথলিক চার্চ কর্তৃক পরিচালিত আবাসিক স্কুলে আদিবাসী শিশুদের ওপর নির্যাতনের ঘটনায় ক্ষমা চেয়েছেন পোপ ফ্রান্সিস।

পোপ ফ্রান্সিস সোমবার পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ আলবার্টার মাস্কওয়াসিসে এক ভাষণে বলেন, আমি এখানে এসেছি আবারও আপনাদের এটা জানাতে যে, আমি গভীরভাবে দুঃখিত। আদিবাসী স্কুলে ঘটে যাওয়া ঘটনা খ্রিস্টানদের ধর্মবিশ্বাসের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয় মন্তব্য করে তিনি বলেন, এটি ছিল একটি বিপর্যয়কর ত্রুটি।

এরমিনস্কিন আবাসিক স্কুলের নির্যাতন থেকে বেঁচে যাওয়া ড. উইল্টন লিটলচাইল্ড দীর্ঘদিন ধরে পোপদের ক্ষমা প্রার্থনার দাবি জানিয়ে আসছেন। বিষয়টি নিয়ে ক্ষমা চাওয়ায় পোপ ফ্রান্সিসকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

১৮৬৩ থেকে ১৯৯৮ সাল পর্যন্ত দেড় লক্ষাধিক আদিবাসী শিশুকে সভ্য করে তোলার নামে পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন করে ১৩০টিরও বেশি খ্রিস্টীয় আবাসিক স্কুলে পাঠানো হয়। কানাডার সরকার ও ধর্মীয় কর্তৃপক্ষ (গির্জা) এসব স্কুল পরিচালনা করতো। এসব প্রতিষ্ঠানে অনেক শিশুই নির্যাতন ও নিপীড়নের শিকার হয়। ধারণা করা হয়ে থাকে এসব স্কুলে থাকার সময়ে প্রায় ছয় হাজার শিশুর মৃত্যু হয়।

২০২১ সালের মে মাসে কানাডার ব্রিটিশ কলম্বিয়ার কামলুপস এলাকার একটি পুরনো আবাসিক স্কুলের ভবন থেকে ২১৫ শিশুর দেহাবশেষ উদ্ধার করা হয়। এসব শিশু আদিবাসী রেড ইন্ডিয়ান বলে জানা যায়। ওই স্কুলটি ১৯৭৮ সালে বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছিল। গত বছরের জুনে সাসকাচেওয়ান প্রদেশের পুরনো একটি আদিবাসী আবাসিক স্কুলে আরও ৭৫১টি চিহ্নহীন কবরের সন্ধান মেলে।

দুই গণকবরে প্রায় এক হাজার দেহাবশেষ উদ্ধারের ঘটনায় চার্চ পরিচালিত আবাসিক স্কুলে আদিবাসী শিশুদের ওপর নির্যাতনের ঘটনা নতুন করে সামনে আসে। এসব স্কুল পরিচালনায় গির্জার ভূমিকা নিয়ে পোপ ফ্রান্সিসকে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানান কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো।

শেয়ার করুন

সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত

Leave a Comment

Your email address will not be published.

আইপিনিউজের সকল তথ্য পেতে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন