জাতীয়

হাসপাতালে গারো তরুণীকে ধর্ষণের চেষ্টা, মালিক আটক

ময়মনসিংহ শহরে একটি বেসরকারি হাসপাতালে এক গারো তরুণীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ পেয়েছে পুলিশ। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের পর ওই হাসপাতালের মালিককে আটক করা হয়েছে।

‘ভূক্তভোগী’ গারো তরুণী গতকাল রোববার কোতোয়ালী মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে হাসপাতালটির মালিক ও ব্যবস্থাপকের নাম উল্লেখ করে মামলা করেন। তারপরই মালিককে আটক করা হয় বলে জানিয়েছেন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহমুদুল ইসলাম।

বিজ্ঞাপণ

ওসি আরো বলেন, ‘আটক মজিবুর রহমান বাবুল শহরের ব্রাহ্মপল্লী এলাকার পদ্মা জেনারেল প্রাইভেট হাসপাতালের মালিক। মামলার মূল আসামি হাসপাতালটি ব্যবস্থাপক আলম মিয়াকে পালিয়ে যেতে সহযোগিতা করায় তাঁকে আটক করা হয়েছে। আলম মিয়াকে গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান শুরু করেছে।’

মামলার বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, পদ্মা জেনারেল প্রাইভেট হাসপাতালে সেবিকার (নার্স) চাকরি নিতে আসেন গারো পাঁচ তরুণী। এর মধ্যে এক তরুণীকে হাসপাতালে ব্যবস্থাপক আলম মিয়া পাশের একটি কক্ষে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়।

বিষয়টি টের পেয়ে বাকি চার তরুণী প্রতিবাদ করেন। এ সময় হাসপাতালের মালিক বিষয়টি আপোষে মীমাংসার চেষ্টা চালান। এই ফাঁকে ব্যবস্থাপক আলম মিয়া পালিয়ে যান বলে মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে।

বিজ্ঞাপণ

source: ntv.com

Back to top button