আঞ্চলিক সংবাদ

শ্রীবরদীতে ৯ জোরা বিবাহ সম্পন্ন

কাঞ্চন মারাক, শ্রীবরদী (শেরপুর): শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলাধীন সীমান্তবর্তী বাবেলাকোনায় সামাজিক স্বীকৃতিহীন ৯ জোরা দম্পতির বিবাহ গতকাল সম্পন্ন হয়েছে।
নেত্রকোনা সদর আদালতের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেড ও লেখক সোহেল ম্রং ‘র উদ্যোগে এবং বাবেলাকোনা ব্যাপ্টিস্ট চার্চের মাধ্যমে উক্ত বিবাহ পরিচালনা করেন পা. পনুয়েল মৃ ও সহযোগীতায় পা. ক্লেনশন থিগিদী প্রমূখ।

মি. মিন্টু ম্রং ‘র সঞ্চালনায় বিবাহ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডিকন এবেলশন ম্রং, ডি. এন্টারশন ম্রং, ডি. এন্টারশন ম্রং, ডি. লেরিশ ম্রং, ডি. সারলা দালবত, ডি. প্রকৃতি দালবত, ডি. এলোনিশ ম্রং, আদিবাসী নেতা মজিদ ম্রং, ডি. চন্দন চিসিম, ডি. চন্দ্র ম্রং, ছাত্র নেতা উন্নয়ন দালবত, বাগাছাস সভাপতি জীবন ম্রং, পূর্ণ কোচ, টিপু বর্মন প্রমূখ।

বিজ্ঞাপণ

৯ জোরা বিবাহ সম্পর্কে আয়োজকরা জানায়, সামাজিক সীকৃতি ছাড়া পারিবারিক সম্মতিক্রমে অনেকেই এই সমাজে অবাধে সংসার করছে, যার অনেকেই সন্তানের জনক। এদের সামাজিক সীকৃতি প্রদান করে ধর্মের পথে আনা প্রয়োজন। তাই এসব দম্পতিদের একত্রে বিবাহ দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে নব-বিবাহিত পুষ্প দফো ও সজিব চিরান দম্পতি আইপি নিউজকে জানায়,”পারিবারিক অসচ্ছলতার কারনে আমরা এতোদিন বিয়ে করে নিতে পারছিলাম না, এই সিদ্ধান্তের ফলে আমরা সামাজিক স্বীকৃতি পেলাম।”

চার্চ সভাপতি পা. ক্লেনশন থিগিদী বলেন, “মহান ঈশ্বরের অনুগ্রহ প্রতিটি নব দম্পতির উপর বর্ষিত হোক, যেনো তারা অন্ধকারের পথ ছেড়ে আলোতে বাস করতে পারে।”

বিজ্ঞাপণ

তিনি আরোও বলেন, “এই সংখ্যা প্রায় ১৮ জন, ৯ টি সম্পন্ন করতে পেরেছি। প্রভূ সহায় থাকলে আশা করি পর্যায়ক্রমে সবগুলো করতে পারবো।”

৯ জোরা নব দম্পতির খ্রিস্টান রীতিতে বিবাহ শেষে দুপুরে আহারের ব্যবস্থা করা হয় এবং প্রতি নব দম্পতিকে বাবেলাকোনা সানশাইন ইয়ুথ ক্লাবের পক্ষ থেকে কিছু উপহার প্রদান করেন ক্লাবের যুবক-যুবতী।

বিশেষ বার্তায় জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেড সোহেল ম্রং, বাগাছাস শ্রীবরদী শাখা সংসদ, টিডব্লিউএ, সিইএস সংগঠন নব দম্পতির জন্যে প্রার্থনা ও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please Disable Your Ad Blocker.