জাতীয়

বিধিমালা প্রণয়ন ও জনবল নিয়োগের পর ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কার্যক্রম শুরু

বান্দরবান প্রতিনিধিঃ পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশন চেয়ারম্যান বিচারপতি (অবসরপ্রাপ্ত) আনোয়ার উল হক বলেছেন, তিন পার্বত্য জেলার বিরাজমান ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তিকরণের লক্ষ্যে গঠিত কমিশন জেলা পর্যায়ে পুরোদমে কাজ শুরু হয়েছে। পর্যাপ্ত তহবিলসহ জনবল এবং বিধিমালা প্রণয়ন কাজ শেষ হওয়ার পর পরই পার্বত্য চট্টগ্রামে ভূমি বিরোধ সংক্রান্ত আবেদনের শুনানী আনুষ্ঠানিকভাবে কার্যক্রম শুরু করা হবে । ১৬ জানুয়ারি সোমবার বান্দরবানের জেলা সার্কিট হাউসে সংশোধিত পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের তৃতীয় বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।
বৈঠকে উপস্থিত পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ চেয়ারম্যান জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা (সন্তু লারমা) সাংবাদিকদের বলেন, আমরা পুনর্গঠিত পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের প্রতি আস্থা ও বিশ্বাস রেখেছি। কমিশনের কাজকর্ম কার্যকরভাবে শুরু করার ক্ষেত্রে সরকারকে আরও আন্তরিক হতে হবে এবং জেলা পর্যায়ে শাখা অফিস চালু করতে হবে।
সোমবার সকাল এগারটা ১০ মিনিটে ভূমি কমিশনের সদস্যদের নিয়ে কমিশনের চেয়ারম্যান বৈঠক শুরু করেন। এ বৈঠক আড়াই ঘন্টাব্যাপী চলে। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি কমিশনের চেয়ারম্যান বিচারপতি আনোয়ার উল হক। এসময় বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্য শৈ হ্লা, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান অংশৈপ্রু চৌধুরী, চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রা.) আমিনুর রশিদ মোমিন, চাকমা সার্কেল চীফ ব্যারিষ্টার দেবাশীষ রায়, বোমাং রাজা প্রকৌশলী উ চ প্রু চৌধুরী, মং সার্কেলের রাজা সাচিং প্রু অং উপস্থিত ছিলেন। কমিশনের বৈঠক পরিচালনা করেন কমিশনের ভারপ্রাপ্ত সচিব সোয়েব উদ্দিন। উল্লেখ্য ১০জানুয়ারি ২০১৭ পর্যন্ত মোট ২২৮৮১টি আবেদন কমিশনের নিকট জমা পড়েছে। তারমধ্যে বান্দরবান জেলায় ৪৫৬৮টি, রাঙ্গামাটিতে ৯৯৪০টি এবং খাগড়াছড়িতে ৮৩৭৩টি আবেদন জমা হয়েছে বলে কমিশন সূত্রে জানা গেছে।

বিজ্ঞাপণ

Back to top button