আঞ্চলিক সংবাদ

বিজিবি সহায়তায় রাঙ্গামাটির ছোট হরিণায় আওয়ামী লীগের নজিরবিহীন জালভোট প্রদান

আইপিনিউজ ডেস্কঃ গত ৪ ঠা মে শেষ দফা ইউপি নির্বাচনে বরকল উপজেলার ভুষনছড়া ইউনিয়নে বিজিবির সহায়তায় আওয়ামী লীগ নজিরবিহীন জালভোট প্রদান করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে।
সূত্র জানায়, বরকল উপজেলাধীন ভূষণছড়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের ছোট হরিণা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের প্রাক মুহুর্ত থেকে (সকাল ৮:০০ টার পূর্ব থেকে) হরিণা জোনের জোন কমান্ডার লে: ক: শাহাবুদ্দিন ফেরদৌসের নেতৃত্বে বিজিবি সদস্যরা ভোটকেন্দ্রে অনতিদূরে চেকপোস্ট বসিয়ে জুম্ম ভোটারদের আইডি কার্ড চেক করতে থাকে। আইডি কার্ড না থাকলে কাউকে ভোট কেন্দ্রে যেতে বাধা প্রদান করে। পরে সংঘবদ্ধ হয়ে জুম্ম ভোটাররা প্রতিবাদ করলে ভোটারদেরকে ভোটকেন্দ্রে যেতে দিতে বাধ্য হয়।

কিন্তু বেলা বাড়ার সাথে সাথে আনুমানিক ১০:০০ ঘটিকার দিকে বিজিবি জওয়ানদের সহায়তায় বহিরাগত আওয়ামী লীগ কর্মীরা ছোট হরিণা ভোট কেন্দ্র দখল করে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী দীলিপ কুমার চাকমার পোলিং এজেন্টদের জোরপূর্বক কেন্দ্র থেকে বের করে দেয় এবং ব্যালটবাক্স দখল করে ভোটকেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার ও পোলিং অফিসারের সহায়তায় নৌকা প্রতীকের পক্ষে ব্যাপকভাবে জাল ভোট প্রদান করে। এ সময় বিজিবি সদস্যরা জুম্ম ভোটারদেরকে কেন্দ্র থেকে তাড়িয়ে দেয় এবং জুম্মদের উপর হামলা করতে বিজিবি সদস্যরা সেটেলার বাঙালি লেলিয়ে দেয়। এতে ২২ জন জুম্ম আহত হয়। সেটেলার বাঙালি লাঠির আঘাতে ৩নং ওয়ার্ডের জান্যাপাড়ার রতিবালা চাকমা নামে একজন নারীর হাত ভেঙ্গেছে বলে জানা যায়। এছাড়া বিজিবি সদস্যরা ধনুবাক এলাকার বোবা চাকমা (৩০) ও ভালুক্যাছড়ি গ্রামের নির্ঝন চাকমা (২৮) নামে দুইজন জুম্ম ভোটারকে অবৈধভাবে আটক করে রাখে। এ বিষয়ে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা, রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, বিজিবি সেক্টর কমান্ডার-এর নিকট অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার পাওয়া যায়নি।

বিজ্ঞাপণ

বেলা ৪:০০ টার দিকে ছোট হরিণা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের নির্বাচন বাতিল করে পুন:নির্বাচনের দাবিতে বরকল উপজেলা রিটার্নিং অফিসারের নিকট লিখিত আবেদন পেশ করেছেন স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী দীলিপ কুমার চাকমা। কিন্তু এখনো পর্যন্ত উক্ত কেন্দ্রের নির্বাচন বাতিল করেনি বা পুনঃনির্বাচনের ঘোষণা প্রদান করেনি। উক্ত ছোট হরিণা কেন্দ্রের নির্বাচন বাতিল পূর্বক পুনঃনির্বাচনের ঘোষণা না দিলে স্থানীয় অধিবাসীরা কঠোর কর্মসূচি প্রদানের প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানা গেছে।

অন্যদিকে একই ইউনিয়নের বড়কুড়াদিয়া কেন্দ্রে সেটেলার বাঙালি কর্তৃক জুম্ম ভোটারদের উপর হামলা, ভোটদানে বাধা প্রদান করা হয়েছে বলে বিভিন্ন সূত্রে খবর পাওয়া গেছে।
সূত্র জানায়, ভোট গ্রহণ শুরু হওয়ার পর জুম্ম ভোটাররা বোট যোগে বরকল উপজেলাধীন ভূষণছড়া ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের বড়কুড়াদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দিতে গেলে সেটেলার বাঙালিরা জুম্মদের বাধা প্রদান করে। এ সময় জুম্মদের উপর হামলার জন্য সেটেলার বাঙালিরা লাঠিসোটা দিয়ে ভোটকেন্দ্রের অনতিদূরে ওৎপেতে থাকে। জুম্ম ভোটাররা ভোটকেন্দ্রে ঢুকলে সেটেলার বাঙালিরা জুম্ম ভোটারদের কাছ থেকে চেয়ারম্যানের ব্যালট কেড়ে নিয়ে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থীর পক্ষে সিল মেরে ভোট বাক্সে ঢুকিয়ে দেয়। অপরদিকে কেন্দ্রের অনতিদূরে অপেক্ষমান জুম্মদের উপর সেটেলার বাঙালিরা বিজিবির ছত্রছায়ায় হামলা চালায়। এতে ছয়জন জুম্ম আহত হয়। তার মধ্যে প্রণেশ চাকমা ও শান্তিলাল চাকমা নামে দুইজনের নাম পাওয়া গেছে। উক্ত কেন্দ্রে জুম্মরা কোন ভোট দিতে পারেনি।

বিজ্ঞাপণ

Back to top button