জাতীয়

ধর্ষণের শিকার দুই আদিবাসী কিশোরী, একজনের আত্মহত্যা

রংপুরের মিঠাপুকুরে দুই বোন একই সঙ্গে গণধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এতে এক আদিবাসী স্কুলছাত্রী আত্মহত্যা করেছে।

মঙ্গলবার রাতে এ ঘটনায় কথিত প্রেমিক রতনসহ তিনজনকে আসামি করে ধর্ষণ এবং আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে মিঠাপুকুর থানায় একটি মামলা হয়েছে। পুলিশ এ ঘটনায় কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

বিজ্ঞাপণ

জানা গেছে, রংপুর নগরীর মাহিগঞ্জ এলাকার ঢোলভাঙ্গা গ্রামের বুধুয়া মিনজির ছেলে রতন মিনজির সঙ্গে এক আদিবাসী স্কুলছাত্রী প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ১৮ এপ্রিল মোবাইল ফোনে করে তাকে দেখা করতে ডাকে রতন। বিকেলে চাচাতো বোনকে নিয়ে প্রেমিকের সঙ্গে দেখা করতে যায় ছাত্রী । সেখানে রতন ও তার তিন বন্ধু মিলে একটি নির্জনস্থানে নিয়ে ছাত্রী এবং চাচাতো বোনকে রাতভর পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরদিন শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৩টায় ছাত্রী ও তার বোন বাড়ি ফিরে। বিকেল ৫টায় স্কুলছাত্রী শয়ন ঘরে তীরের সঙ্গে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে।

এ ঘটনায় ছাত্রী বোন বাদী হয়ে রতনসহ তিনজনকে আসামি করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মিঠাপুকুর থানার ওসি জাফর আলী বিশ্বাস বলেন, লাশ উদ্ধার করে পোস্ট মর্টেম করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারে জোর চেষ্টা চলছে।

বিজ্ঞাপণ

Back to top button