জাতীয়

” আলুটিলা বিশেষ পর্যটন জোন” এর প্রতিবাদে ঢাকায় মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

২ রা সেপ্টেম্বর সকাল ১০ টায় শাহবাগ, জাতীয় জাদুঘরের সামনে মাটিরাঙ্গা উপজেলার আলুটিলা, তৈকাথাং এবং খাগড়াছড়ি সদরে গোলাবাড়ি মৌজা থেকে ত্রিপুরা আদিবাসীদের উচ্ছেদ করে ” আলুটিলা বিশেষ পর্যটন জোন” গঠনের নামে ৭০০ একর ভূমি অধিগ্রহনের প্রক্রিয়া বন্ধ ও নোটিশ বাতিলের দাবিতে ত্রিপুরা স্টুডেন্টস ফোরাম ঢাকা মহানগর শাখা কর্তৃক ছাত্র সমাবেশ ও মানবব্ন্ধন আয়োজন করা হয়।
মানববন্ধনে লালন ত্রিপুরা সভাপতিত্বে এবং ক্লিনটন ত্রিপুরার সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন অসিত ত্রিপুরা। মানববন্ধনে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ গারো ছাত্র সংগঠনের সদস্য সাইমন রিছিল, ত্রিপুরা স্টুডেন্টস ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির আইন বিষয়ক সম্পাদক ভিক্টর ত্রিপুরা, বাংলাদেশ আদিবাসী ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি সুমন মারমা,হিল উইমেন্স ফেডারেশন কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি চঞ্চনা চাকমা, আদিবাসী ফোরামের ছাত্র ও যুব বিষয়ক সহ-সম্পাদক চৈতালী ত্রিপুরা,বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি শরিফুজ্জামান শরিফ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌস,বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব দ্রং,বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত এবং শ্রী পঙ্কজ ভট্টাচার্য্য, সভাপতি ঐক্যন্যাপ।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, যে ঐতিহাসিক পার্বত্য চট্টগ্রামের চুক্তি সেই চুক্তি অনুযায়ী, পার্বত্য এলাকায় উন্নয়ন,ভূমি অধিগ্রহণ বা দখল করতে সেখানকার জেলা পরিষদের সাথে এবং আঞ্চলিক পরিষদের সাথে বিধান রয়েছে কিন্তু সরকার সেটিকে দিন দিন লঙ্ঘন করে সেখানে প্রতিনিয়ত নামে বেনামে ভূমি দিখল করে চলেছে। পাহাড়ি মানুষেরা এখনও শান্তশিষ্ট, তাদেরকে ক্ষেপাবেন না। না হলে যেকোনো পরিস্থিতি সৃষ্টি হতে বাধ্য করলে সরকার তার দায়বার সম্পূর্ণরূপে নিতে হবে।
বক্তারা আরও বলেন, সরকার এক এক করে মধুপুর,শাহেবগঞ্জ-বাগদাফার্ম, রেমা কালেঙ্গা, নীলগিরি, নিলাচল,সাজেক, কাপ্তাই বাঁধ আজকে আলুটিলা অর্থনৈতিক অঞ্চল বানিয়ে আদিবাসীদের জায়গাগুলোকে দখল করে চলেছে তাই কোন ন্যায় বিচার দিচ্ছেনা।
বক্তারা জোর দিয়ে বলেন অবিলম্বে ৭০০ একর ভূমি বেদখলের প্রক্রিয়া বন্ধ ঘোষণা করতে অন্যথায় ভবিষ্যতে আরও কঠোর আন্দোলনের মধ্যে দিয়ে সরকারকে বাধ্য করাবে।
সমাবেশে সংহতি জানিয়েছেন, আদিবাসী আইনজীবী ফোরাম,আদিবাসী ফোরাম, কাপেং ফাউন্ডেশন আদিবাসী কালচারাল ফোরাম, খাসি স্টুডেন্টস ইউনিয়ন, গারো স্টুডেন্টস ইউনিয়ন,সান্তাল স্টুডেন্টস ইউনিয়ন, জাতীয় আদিবাসী পরিষদ, জাতীয় আদিবাসী ছাত্র পরিষদ, আদিবাসী যুব পরিষদ, Hill online activits Forum সহ বিভিন্ন প্রগতিশীল সংগঠন।
আগামিতে এ ৭০০ একর ভূমি অধিগ্রহণ বন্ধের দাবিতে খাগড়াছড়িতে বিশাল সমাবেশ ও গণস্বাক্ষরের কর্মসূচী ঘোষণা করে সমাবেশটি সমাপ্তি ঘোষণা করেন। সমাবেশ শেষে শাহবাগ থেকে মিছিল আকারে রাজু ভাস্কর্যে এসে শেষ হয়।

বিজ্ঞাপণ

Back to top button